blogsboard

#admission #university #bangladesh-university-of-engineering-&-technology

13 Feb, 2022

বুয়েট এডমিশন পর্ব ০২: কিভাবে পড়বো

গত পর্বে আমি তোমাদের জন্য কিছু সমস্যা রেখে গেছিলাম। সেগুলো হলোঃ

অনেক অনেক সুত্র

প্রমান কি মুখস্ত করা লাগবে?

কন্সেপ্টে সমস্যা

আজকে এইসব নিয়ে আলোচনা করবো। মানে কিভাবে পড়বো, বা প্রমান মুখস্ত করবো কিনা, সেসব নিয়ে আলোচনা।

তো প্রথমেই আসি, কিভাবে পড়বো? তোমাদের অনেকেই একটা প্রশ্ন করো, বই কতবার রিভাইজ দেওয়া উচিত? বা একটা ম্যাথ কতবার করা উচিত? বা আমি কতদিনের মধ্যে বইটা শেষ করলে সেইফ থাকতে পারবো? এখন এসবের কোন নির্দিষ্ট উত্তর নেই। আমি আমার এক্সপেরিয়েন্স থেকে বলছি, তাড়াহুড়া করে শেষ করার থেকে অল্প অল্প করে বুঝে বুঝে পড়াই ভালো। এখন বুঝে পড়বো কিভাবে? আমার একটা জিনিস প্রায়ই হতো, বুঝতাম সবই, কিন্তু নিজে থেকে করতে গেলে যেতাম আটকিয়ে।

এরপর আমার এক বড় ভাই, যিনি বুয়েট সিএসই তে পড়তেন, ( এইচ এস সি ১৩ ব্যাচ ) উনি বললেন, ফিজিক্স বা ম্যাথ যখন করবা, দরকার হোক আর নাইই হোক, ছবি একে করবা। এতে প্রশ্ন যখন একটু ঘুরিয়ে দেয়, তুমি ছবির সাথে রিলেট করে পড়তে পারবা। আর একটা সাজেশন ছিলো, যতক্ষন ম্যাথ করতে করতে তুমি একেবারেই পারছোনা তোমার জানা সুত্র দিয়ে, তখনই নতুন সুত্র শিখবা। এসব নিয়ে কিছু বিস্তারিত লেখা যাকঃ

ছবি আঁকা

সমাধান হয়েছেঃ কন্সেপ্টে সমস্যা

এই পদ্ধতিতে আমি যখন ম্যাথ বা ফিজিক্স এর প্রবলেম সলভিং করা শুরু করলাম, তখন আমি দেখলাম বলবিদ্যা যেই চ্যাপ্টার আমি এত ভয় পেতাম, সেই চ্যাপ্টার অনেক সোজা লাগে। তখন আমি নিজে থেকে মোটিভেটেড হয়ে অন্য সব চ্যাপ্টারেও এপ্লাই করা শুরু করেছিলাম। ছবি এঁকে এঁকে সলুশন করা  আবার সব চ্যাপ্টার এর ক্ষেতে কাজে লাগবেনা সব সময় (যেমন ত্রিকোনমিতি)।

এখন এই পদ্ধতিতে সব ম্যাথ করাও মুশকিল। অনেকে ভাবতে পারো, এতে তো আমার উলটা টাইম বেশি প্রয়োজন। কিন্তু না। শুরুতে তোমার সময় বেশি দরকার হলেও যখন তোমার অভ্যাস হয়ে যাবে, তখন নরমাল স্পিডের থেকেও বেশি ফাস্ট সল্ভ করতে পারবা।

নতুন সুত্র ( যখন আর পারাই যাচ্ছেনা, জানা সুত্র দিয়ে )

সমাধান হয়েছেঃ অনেক অনেক সুত্র মুখস্ত থেকে মুক্তি

আমার মতে, এই সাজেশন টা আমার লাইফ চেঞ্জিং একটা সাজেশন ছিলো। আমার অনেক বড় একটা গ্যাপ ( কন্সেপ্ট + গাদা গাদা সুত্র এভয়েড ) পুরনে অনেক হেল্প করেছে। আমি যখন দেখলাম, আরেহ এই সুত্র দিয়েই তো আমি প্রবলেম টা সল্ভ করতে পারি, তখন আমার মধ্যে ভয় অনেক টাই কেটে যায়। যে কোন একটা প্রবলেম দেখলে আমার ইচ্ছা করে সল্ভ করতে। আরও একটা চিন্তা দূর হয়, তা হলো সুত্র ভুল লেখা। তুমি যখন একই সুত্র দিয়ে বিভিন্ন ম্যাথ বার বার করবে, তখন স্বাভাবিক ভাবেই তুমি অনেক দক্ষ হয়ে যাবে ওই সুত্রটার ওপর। ভুলও কম করবে।

আজকে এই পর্যন্তই। আজকে একটা জিনিস বাদ রাখলাম,

 -- প্রমান মুখস্ত করবো কিনা -- 

ইন শা আল্লাহ্‌ নেক্সট পর্বে প্রমান মুখস্ত করবো কিনা, এইটার সাথে আরো যেসব বিষয় আলোচনা করবো সেগুলো হলোঃ

-- এডমিশনের পড়া কখন শুরু করবো? এবং এডমিশনের পড়া বলতে আসলে কি বুঝযায়?

তোমরা ব্লগটি বেশি বেশি শেয়ার করতে থাকো, আর ফ্রেন্ড দের মেনশন করতে থাকো যেন অন্যরাও জানতে পারে।

আর অবশ্যই তোমাদের কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে জানাও। আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো, সেগুলোর উত্তর পরবর্তী পর্বে দেওয়ার।

রাশিদ মাহদী

চতুর্থ বর্ষ

সিএসই, বুয়েট

July 2020

Get Free Live Classes and Tests on the Sohopathi App